32 C
Dhaka

ইউক্রেনে যে অস্ত্র ব্যবহারের আশঙ্কা নাকচ করল রাশিয়া

প্রকাশিত:

ইউক্রেনে পরমাণু বা রাসায়নিক অস্ত্র মোতায়েন করতে পারে রাশিয়া, পশ্চিমা গণমাধ্যমে প্রকাশিত এমন খবর প্রত্যাখান করেছে রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু। মঙ্গলবার রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী এক আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা সম্মেলনে এসব কথা বলেন। খবর রয়টার্সের।

রাশিয়া বলেছে, ইউক্রেন সংঘাতে নিজের লক্ষ্য অর্জন করার জন্য পরমাণু অস্ত্রের কোনো প্রয়োজন নেই মস্কোর। তিনি বলেন, ইউক্রেনে আমরা যে লক্ষ্য নির্ধারণ করেছি তা অর্জন করার জন্য পরমাণু অস্ত্রের প্রয়োজন নেই। তিনি আরও বলেন, রাশিয়া প্রধানত (শত্রুপক্ষের) সম্ভাব্য পরমাণু হামলা প্রতিহত করার জন্য পরমাণু অস্ত্র তৈরি করেছে।

রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, গণমাধ্যম ব্যাপকভাবে এই জল্পনা ছড়িয়ে দিচ্ছে যে, রাশিয়া তার বিশেষ সামরিক অভিযানে পরমাণু অস্ত্র ব্যবহার করবে অথবা রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করতে যাচ্ছে। কিন্তু এসব তথ্যগত আক্রমণ সম্পূর্ণ মিথ্যা।

সের্গেই শোইগু বলেন, আমেরিকা ও ব্রিটেনসহ ন্যাটোভুক্ত দেশগুলো ইউক্রেনে একটি সংঘাত বাধানোর পাঁয়তারা করে আসছিল এবং এজন্য তারা পূর্ব ইউরোপে সেনা ও সমরাস্ত্রের আনাগোনা বাড়িয়েছিল। কিন্তু তাদের সে পরিকল্পনা নস্যাত করে দিতেই রাশিয়া আগাম অভিযান চালিয়েছে।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে ‘বিশেষ সামরিক অভিযান’ শুরু করে রাশিয়া। প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এই অভিযানের অন্যতম প্রধান লক্ষ্য হিসেবে ইউক্রেনকে ‘নাৎসিমুক্ত’ করার কথা ঘোষণা দেন। এই যুদ্ধে ইউক্রেনের প্রায় ৬০ লাখ মানুষ দেশ ছাড়া হয়েছেন। বহু মানুষ হতহত হয়েছেন। ইউক্রেনের বিভিন্ন জায়গায় চলছে তুমুল লড়াই।

সম্পর্কিত খবর

সর্বশেষ খবর

spot_img