27 C
Dhaka

ইউরোপের তিন দেশে রাশিয়ার তেল রপ্তানি বন্ধ

প্রকাশিত:

ইউরোপের তিনটি দেশে তেল রপ্তানি বন্ধ করে দিয়েছে রাশিয়া।পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার ফলে পাইপলাইনের মধ্যদিয়ে তেল পরিবহণের ভাড়া পরিশোধ করতে না পারায় স্লোভাকিয়া, হাঙ্গেরি এবং চেক প্রজাতন্ত্রে এ সরবরাহ বন্ধ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় পাইপলাইন পরিচালনাকারী সংস্থা ট্রান্সনেফট জানিয়েছে, ইউক্রেনের পক্ষ থেকে দ্রুজবা পাইপলাইনের ভেতর দিয়ে তেল পরিবহন বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এই পাইপলাইনের ভেতর দিয়েই চেক প্রজাতন্ত্র, স্লোভাকিয়া এবং হাঙ্গেরিতে তেল সরবরাহ করে আসছে রাশিয়া।

মস্কোর ওপর পশ্চিমা অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞার কারণে পাইপলাইনের ভাড়া পরিশোধ করা সম্ভব হচ্ছে না বলে ট্রান্সনেফট কোম্পানি জানিয়েছে। খবর আল জাজিরার।

কোম্পানির বিবৃতিতে বলা হয়, গত ৪ আগস্ট ইউক্রেনের ভেতর দিয়ে রাশিয়ার তেল পরিবহন বন্ধ করে দিয়েছে কিয়েভ। ইউক্রেন পাইপ লাইনের ভাড়া বাবদ অর্থ না পাওয়ার কারণে তারা তেল পরিবহন বন্ধ করে দেয় বলে কোম্পানিটি জানিয়েছে।

স্লোভাকিয়া শোধনাগারের একজন মুখপাত্র নিশ্চিত করেছেন যে, কয়েকদিন ধরে তেল পরিবহন বন্ধ রয়েছে।তবে বেলারুশ হয়ে পোল্যান্ড এবং জার্মানিতে সরবরাহ ‘স্বাভাবিকভাবে’ অব্যাহত ছিল বলে ট্রান্সনেফটের বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

এদিকে যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বুধবার তাদের সর্বশেষ গোয়েন্দা তথ্যে জানিয়েছে, ইউক্রেন যুদ্ধে অংশ নিতে বিপুল পরিমাণ সেনাদের নিয়ে ‘থার্ড আর্মি কর্পস’ নামে একটি দল প্রস্তুত করেছে রাশিয়া। তারা বর্তমানে রাশিয়ার রাজধানী মস্কোর মুলিনোতে রয়েছে।

এমন একটি কর্পসে প্রায় ১৫-২০ হাজার সেনা থাকে। তবে এই কর্পসটিতে কতজন সেনা আছে সেটি নিশ্চিত নয়। ইউক্রেন যুদ্ধে অংশ নিতেই তাদের নিয়োগ দেওয়া হয়েছে এবং তাদের বড় ধরনের আর্থিক সুবিধা দেওয়ার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে।

যুক্তরাজ্যের গোয়েন্দারা জানিয়েছে, নতুন একটি কর্পস গঠন করা হলেও সেখানে হয়ত ১৫-২০ হাজার সেনা নেই। কারণ ইউক্রেনে যুদ্ধ করার ক্ষেত্রে রাশিয়ানদের তেমন স্বদিচ্ছা নেই।

এ ব্যাপারে যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, রাশিয়ার একটি কর্পসে সাধারণত ১৫-২০ হাজার সেনা থাকে। কিন্তু থার্ড আর্মি কর্পসে এত সেনা নেওয়া রুশদের জন্য খুব সম্ভবত কঠিন হবে। কারণ ইউক্রেনে যুদ্ধ করার ক্ষেত্রে রাশিয়ানদের এতটা স্বদিচ্ছা নেই।

সম্পর্কিত খবর

সর্বশেষ খবর

spot_img