18 C
Dhaka

কুড়িগ্রামে রাস্তায় লাশ রেখে মহাসড়ক অবরোধ

প্রকাশিত:

কুড়িগ্রাম সদর প্রতিনিধি: কুড়িগ্রাম জেলা সদরের  জলিল বিড়ি ফ্যাক্টরির ভিতরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে  মাঈদুল ইসলাম বাপ্পি (২২) নামের এক বিড়ি শ্রমিককে আঘাত করেন.খোকন ইসলাম (২২) নামের এক যুবক । অভিযুক্ত যুবক খোকন পৌরশহরের মাটিকাটা মোড়ের মৃত বোবা নজির এর পুত্র। তিনি ফ্যাক্টরির মালিক আল্বহাজ পনির উদ্দিন আহমেদ এর মামাতো ভাই। 

এ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তির গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে মঙ্গলবার বেলা ১২টার দিকে নিহত যুবকের মৃতদেহ কুড়িগ্রাম-ভূরুঙ্গামারী সড়কে  রেখে টায়ার জ্বালিয়ে  অর্ধদিবস রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন নিহত ব্যক্তির স্বজন ও এলাকাবাসী 

পরে পুলিশ গিয়ে বিক্ষোভকারীদের সরানোর চেষ্টা করলে উত্তেজিত জনতা পুলিশের উপর চড়াও হলে এক মহিলাসহ ৪ জন গুরুতর আহত হন । এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত  অর্ধদিবস সড়ক অবরোধ থাকায় যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে ।

এদিকে, বাপ্পি হত্যার ঘটনায় তাঁর মা বিউটি বেগম বাদী হয়ে অভিযুক্ত খোকনকে আসামী করে সোমবার রাতে কুড়িগ্রাম সদর থানায় মামলা করেন। তবে পুলিশ এখন পর্যন্ত অভিযুক্ত আসামী গ্রেফতার করতে পারেনি। 

বিউটি বেগম বলেন, ‘আমার ছেলেকে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে। এখানে প্রভাবশালী মহলের ক্ষমতা থাকায় পুলিশ এখন পর্যন্ত আসামীকে আটক করতে পারেনি। আমার ছেলে হত্যার বিচার চাই।’

লাশ নিয়ে স্বজনদের সড়ক অবরোধ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে কুড়িগ্রাম সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খাঁন মোহাম্মদ শাহরিয়ার  বলেন, পুলিশের লাঠিচার্জের বিষয়টি সঠিক নয়। আমাদের পুলিশ তাদের থেকে দূরে আছে। জনপ্রতিনিধিদের দিয়ে রাস্তা থেকে অবরোধ তুলে নেয়ার জন্য বোঝানোর চেষ্টা চলছে।’


আসামী আটকের বিষয়ে তিনি আরো বলেন,’ আসামী যতই প্রভাবশালী হোক না কেন। তাকে গ্রেফতার করার চেষ্টা চলছে। হত্যাকান্ডের বিষয়টি তদন্তসাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।’

উল্লেখ্য, নিহত বাপ্পি পৌরশহরের চৌধুরী পাড়ার খাদেম আলীর ছেলে। সে কুড়িগ্রাম মজিদা আর্দশ ডিগ্রি কলেজের অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্র।

সম্পর্কিত সংবাদ

spot_img

সর্বশেষ সংবাদ

spot_img