21 C
Dhaka

খাস ফুড : নিরাপদ ও বিশুদ্ধ খাদ্যের বিশ্বস্ত গন্তব্য

প্রকাশিত:

খাস ফুড মূলত একটি ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম যা গুণগত মানসম্পন্ন, নিরাপদ ও বিশুদ্ধ খাদ্য সাধারণ মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেয়ার জন্য বদ্ধপরিকর। খাস ফুডের অন্যতম প্রধান লক্ষ্য হলো, সুস্থ শরীর ও মনের অধিকারী সুস্থ-সবল একটি জাতি উপহার দেয়া। সমৃদ্ধ বাংলাদেশ নিশ্চিত করতে এবং মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে চায় খাস ফুড।

মৌসুমী ফল, নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য, দুগ্ধজাত পণ্য, মাছ, মাংস, চা, স্ন্যাকস, মধু এমনকি কোরবানির গরুসহ শতাধিক পণ্য বিক্রি করে থাকে খাস ফুড।

রাজধানী ঢাকাসহ কয়েকটি বিভাগীয় শহরেও খাস ফুডের কার্যক্রম রয়েছে। খাস ফুডের নিজস্ব আউটলেটের পাশাপাশি অনলাইনে অর্ডারকৃত পণ্য হোম ডেলিভারির ব্যবস্থা রয়েছে। খাস ফুডের নিজস্ব ওয়েবসাইট- khaasfood.com এবং ফেসবুক পেজ- fb.com/khaasfood ছাড়াও 09612002255 হট লাইন নম্বরের মাধ্যমে খাস ফুডে পণ্য অর্ডার করতে পারেন গ্রাহকরা। এছাড়া বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে খাস ফুডের আউটলেট থেকেও পণ্য সংগ্রহ করার সুযোগ রয়েছে।

১৬ কোটিরও বেশি মানুষের একটি দেশ বাংলাদেশ। এখানে মানুষের জন্য নিরাপদ ও বিশুদ্ধ খাদ্য নিশ্চিত করা বেশ চ্যালেঞ্জিং একটি কাজ। সেই কাজটিই অত্যন্ত দায়িত্বশীলতার সঙ্গে করে চলেছে খাস ফুড।

খাস ফুড চায়, স্বাস্থ্যকর মানের খাবার সরবরাহ করে দেশের মানুষের সুস্থ ও সুখী জীবন নিশ্চিত করতে। দ্রুততার সঙ্গে পণ্য ডেলিভারি পরিষেবা এবং ক্রেতাদের চমৎকার একটি কেনাকাটার অভিজ্ঞতা দিতে অঙ্গীকারাবদ্ধ খাস ফুড। সুস্থ জীবন নিশ্চিত করার মাধ্যমে গ্রাহকদের মুখে হাসি ফোটাতে চায় খাস ফুড।

খাস ফুড প্রথম যাত্রা শুরু করে ২০১৫ সালে। শুরু থেকেই খাস ফুড একটি নির্দিষ্ট প্রক্রিয়ার মাধ্যমে নগরবাসীর দোরগোড়ায় নিরাপদ এবং বিশুদ্ধ খাবার নিশ্চিত করার জন্য প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। পাশাপাশি এটি ভেজাল খাবারের অপকারিতা, খাদ্য নিরাপত্তা এবং স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস সম্পর্কে মানুষের মধ্যে সচেতনতা তৈরি করেছে। যাত্রা শুরুর পর থেকে অগণিত গ্রাহকের আস্থা অর্জন করে নিয়েছে খাস ফুড।এখন পর্যন্ত খাস ফুড ৩৫ হাজারেরও বেশি গ্রাহককে সেবা দিয়েছে।

বর্তমানে খাস ফুড তাদের পণ্য বাংলাদেশের প্রতিটি জেলায় পৌঁছে দিতে কাজ করছে। এই যাত্রায় গ্রাহকদের কাছ থেকে অনেক ভালোবাসা এবং সাড়াও পেয়েছে তারা। গ্রাহকের আস্থা ও ভালোবাসাকেই ব্যবসার কেন্দ্রবিন্দু বলে মনে করে তারা।

ভালো কাজের স্বীকৃতি হিসেবে ২০১৬ সালে গ্রাহকদের ভোটের উপর ভিত্তি করে ন্যাশনাল এফ-কমার্স সামিট পুরস্কার জিতে নেয় খাস ফুড। সেই গল্প ২০১৭ সালে ফেসবুক বিজনেস নামে ফেসবুকের গ্লোবাল প্ল্যাটফর্মে প্রকাশিতও হয়েছে। এছাড়া ২০১৮ সালে খাস ফুড জিতে নিয়েছে নবীন উদ্যোক্তা স্মারক। খাস ফুডের এই সাফল্যের গল্প দেশের শীর্ষস্থানীয় ইংরেজি দৈনিক ডেইলি স্টার ছাড়াও ফিউচার স্টার্টআপ এবং আইডিএলসি মাসিক বিজনেস রিভিউয়েও প্রকাশিত হয়েছে।

সম্পর্কিত সংবাদ

spot_img

সর্বশেষ সংবাদ

spot_img