31 C
Dhaka

গানের বারোটা বাজিয়ে এবার কবিতা শোনাবেন হিরো আলম (ভিডিও)

প্রকাশিত:

গানের গুষ্টি উদ্ধার করেও শান্তি হয়নি আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলমের। কিছুদিন আগেই হেরে গলায় রবীন্দ্রসংগীত গেয়ে তুমুল বিতর্কিত হন এই অনলাইন সেলিব্রেটি। সেই রেশ কাটতে না কাটতেই এবার কবিতা আবৃত্তি শোনাতে আসছেন সোশ্যাল মিডিয়ার জনপ্রিয় এই তারকা। তার নতুন এই খায়েসের কথা শুনে রীতিমতো শঙ্কিত নেটিজেনরা।

সোশ্যাল মিডিয়ার কল্যাণে অনেক আগেই জনপ্রিয় তারকা বনে গেছেন একসময় ডিস ব্যবসায়ী বগুড়ার ছেলে হিরো আলম। বাংলাদেশের গণ্ডি পেরিয়ে ভারতেও খ্যাতি পেয়েছেন তিনি। তাকে নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা আর বিতর্ক থাকলেও অনলাইন সেলিব্রেটি হিসেবে হিরো আলম বেশ ভালোই নামডাক কামিয়েছেন। প্রায় সব বাঙালিই হিরো আলম নামটির সঙ্গে পরিচিত।

ডিস ব্যবসায়ী হিরো আলম জনপ্রিয় সব বাংলা গানের পাশাপাশি হিন্দি গানেও কিম্ভুতকিমাকার মডেল হয়ে ভিডিও বানানো শুরু করেন। তার উদ্ভট সেসব কার্যকলাপের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমতো ভাইরাল হয়ে যায়। রাতে রাতে অনলাইন তারকা বনে যান তিনি।

পরবর্তী সময়ে হিরো আলম নিজেই সিনেমা বানানো শুরু করেন। শুধু তাই নয়, বিকৃত সুরে হেরে গলায় গান গেয়ে ব্যাপক সমালোচিত হন তিনি। সমালোচনার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়তে থাকে জনপ্রিয়তা।

বিকৃত সুরে রবীন্দ্র সংগীত গাওয়ায় তাকে পুলিশ পর্যন্ত তলব করে। পুলিশের কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে তাকে এ ধরনের বিতর্কিত কর্মকাণ্ড থেকে দূরে থাকতে বলা হয়। রাজীয় হন তিনি। কিন্তু পুলিশের হাত থেকে ছাড়া পেয়ে সুর পাল্টে ফেলেন। পুলিশের বিরুদ্ধে হেনস্থার অভিযোগ তোলেন তিনি। এমনকি তার এই ঘটনা নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করে বিবিসির মতো শক্তিশালী আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম।

গানের বারোটা বাজানোর পর এবার কবিতার পেছনে লেগেছেন হিরো আলম। নিজ কন্ঠে কবিতা আবৃত্তি করে শোনাবেন তিনি। এবার বেশ কোমর বেঁধেই মাঠে নেমেছেন হিরো আলম। পোয়েট্রিকাল ফিল্ম নির্মাণ করতে চলেছেন তিনি। সেই পোয়েট্রিকাল ফিল্মেই শোনা যাবে তার কন্ঠের কবিতা।

হিরো আলমের নতুন এই ফিল্মের শিরোনাম ‘হাসিওয়ালা’ যার ব্যাপ্তি আট মিনিট। ‘হাসিওয়ালা’য় থাকছে অতীন্দ্রকান্তি অজুর লেখা একটি কবিতা। হিরো আলম এর জীবনের গল্প নিয়েই নাকি লেখা হয়েছে এই কবিতা।

হিরো আলমের কন্ঠে হেরে গলায় গান শুনে যেসব নেটিজেনের পিলে চমকে গেছে তারা এবার আতঙ্কগ্রস্ত হিরো আলমের কন্ঠে কবিতা আবৃত্তির খবর শুনে। অবশ্য তাতে কিছুই যায় আসে না আলম সাহেবের। তিনি এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন তার নতুন শখ পূরণের জন্য। চলছে জোরালো প্রস্তুতি।

গত দুই মাস ধরে আবৃতি চর্চা করছেন হিরো আলম। তাও আবার শিক্ষক রেখে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক জুয়েল আদীবের কাছে আবৃত্তি শিখছেন আলম সাহেব।

কবিতা আবৃত্তি নিয়ে হিরো আলমের ভাষ্য, আমার জীবনের গল্প নিয়েই এই কবিতা লেখা হয়েছে। আবৃত্তি করার পাশাপাশি কবিতাটির সঙ্গে অভিনয়ও করব আমি। আমার সঙ্গে থাকবে রিয়া মনিসহ আরও কয়েকজন। এই কবিতায় উঠে আসবে আমার জীবনের দুঃখ-দুর্দশার চিত্র। আমার মনে হয়, এটি আমার জীবনের সেরা কাজগুলোর একটি হতে যাচ্ছে।

সম্পর্কিত খবর

সর্বশেষ খবর

spot_img