প্রচ্ছদ বাংলাদেশ ঢাকা ঘুরে আসুন ‘বেলাই বিল’

ঘুরে আসুন ‘বেলাই বিল’

0
28
ঘুরে আসুন ‘বেলাই বিল’
ঘুরে আসুন ‘বেলাই বিল’

ঢাকার আশেপাশে বেড়াতে যাওয়ার অন্যতম এক স্থান হলো বেলাই বিল। এর সৌন্দর্যে মুহূর্তেই মুগ্ধ হবে আপনি! ছুটির দিনে পড়ন্ত এক বিকেল কাটাতে যেতে পারেন গাজিপুরের বেলাই বিলে। নৈসর্গিক সৌন্দর্যময় এ স্থানটি একদিনের ট্রিপে যাওয়ার জন্য একেবারেই পারফেক্ট।

চারপাশে পানি আর মাঝে ভাসমান ঘর-বাড়ি, নৌকা, কচুরিপানা, শাপলাফুল, সবুজ প্রকৃতি সব যেন মিলেমিশে একাকার। বেলাই বিলে গেলে আপনি মুহূর্তেই সেখানকার সৌন্দর্যে হারিয়ে যাবেন। প্রিয়জন কিংবা পরিবার নিয়ে পড়ন্ত বিকেল কাটানোর জন্য সেরা এক স্থান হলো বেলাই বিল। ঢাকার খুব কাছে হওয়ায় একদিনে ঘুরেই চলে আসতে পারবেন।

জানা যায়, ঢাকার কাছে যেসব বিল আছে, এর মধ্যে বেলাই বিল রূপে অন্যদেরকে টেক্কা দেয়! এর কোনো কোনো স্থানে প্রায় সারা বছরই পানি থাকে। তবে বর্ষায় বেলাই বিলের রূপ দ্বিগুণ বেড়ে যায়। গাজীপুর জেলার সদর ও কালীগঞ্জ উপজেলার ঠিক মাঝখানে এ বিলের অবস্থান। বাড়িয়া, ব্রাহ্মণগাঁও, বরক্তাপুর ও বামচিনি মৌজা গ্রাম ঘেরা বেলাই বিলে আজ থেকে ৪০০ বছর আগে গ্রামের কোনো অস্তিত্ব ছিল না। খরস্রোতা চিলাই নদীর কারণে বিলটিও খরস্রোতা হিসেবে বিরাজমান ছিল। বর্তমানে বিলটি ৮ বর্গমাইল এলাকায় বিস্তৃত হলেও আগে আরও বড় ছিল। বিশাল এই বিলটির কোনো কোনো স্থানে প্রায় সারাবছরই পানি থাকে, তবে বর্ষায় এর রূপ বেড়ে যায় অনেকাংশে। জেলেরা বিলে চারপাশে ডাঙ্গি খনন করে মাছ ধরেন। আর শুষ্ক মৌসুমে বিলটি হয়ে ওঠে একফসলী জমিরূপে। তখন বোরো ধানের চাষাবাদ করা হয়। ঢাকার কাছে উন্নত ভূমির যেসব বিল রয়েছে, তারমধ্যে বেলাই বিল রূপ-সৌন্দর্যে অনন্য। চেলাই নদীর সঙ্গে মিলিত বেলাই বিল। খুব বেশি চওড়া নয় চেলাই নদী, তবে খুব গভীর। সেখানে গেলেই দেখতে পাবেন ছোট ছোট সব নান্দনিক ডিঙি নৌকা। সারাদিনের জন্য ভাড়া নিয়ে এসব নৌকায় সময় কাটাতে পারবেন আপনিও। বেলাই বিলের পানিতে সাদা, গোলাপি, নীল বিভিন্ন রঙের শাপলা ফুল ফুটে থাকে। বিলের সৌন্দর্য আরও বাড়িয়ে তোলে সেখানকার শাপলা ফুলেরা।

বেলাই বিলের চারপাশে দ্বীপের মতো গ্রাম। বামচিনি মৌজা বেলাই বিলের একটি দ্বীপগ্রাম। এক মৌজায় এক বাড়ি। উপর থেকে দেখলে মনে হবে ভাসমান সব ঘর-বাড়ি। চারপাশে থৈ-থৈ পানি। এর মাছেই দুই একটি বাড়ি। বেলাই বিলের মাটি লাল হওয়ায় সেখানে ভালো লাউ জন্মে। দর্শনার্থীরা বেলাই বিল ঘুরে ফেরার সময় কয়েকটি লাউ কিনে আনতে ভুলেন না! এ ছাড়াও সেখানে আছে সারি সারি তালগাছ। সঙ্গে পাবেন বিলের টাটকা মাছ।

বেলাই বিলের ইতিহাস সম্পর্কে জানা যায়, ৪০০ বছর আগে সেখানে কোনো গ্রামের অস্তিত্বই ছিল না। শুধু খরস্রোতা চেলাই নদী বহমান ছিল। এ কারণে বিলটিও খরস্রোতা হিসেবে বিরাজমান ছিল। ইতিহাস বলে, ভাওয়ালের ভূ-স্বামী ঘটেশ্বর ঘোষ ৮০টি খাল কেটে চেলাই নদীর পানি শেষ করেন। তারপরই এটি বিলে পরিণত হয়েছে।

বেলাই বিলের কানাইয়া বাজার সংলগ্ন সুন্দর একটি ব্রিজ আছে। চাইলে সেখানেও কিছুক্ষণ সময় কাটাতে পারবেন। কানাইয়া বাজারে কিছু ছোট-বড় দোকানে আছে। সেখান থেকেই হালকা খাবার কিনে খেতে পারবেন। চাইলে সঙ্গে খাবার নিয়েও যেতে পারেন।

কীভাবে যাবেন?

গুলিস্তান বা ঢাকার যেকোনো স্থান থেকে গাজিপুর বাসস্ট্যান্ডে যেতে হবে। সেখান থেকে রিক্সা বা টেম্পুতে চড়ে যেতে হবে কানাইয়া বাজার। সেখানে পৌঁছেই দেখবেন, সারি সারি নৌকা বাঁধা আছে পাড়ে। দামাদামি করে উঠে পড়ুন নৌকায়। উপভোগ করুন বেলাই বিলের মসোরোম সৌন্দর্য।