28 C
Dhaka

চট্টগ্রাম বন্দরে আসছে ভারতীয় জাহাজ

প্রকাশিত:

ট্রানজিটের আওতায় চট্টগ্রাম বন্দর ব্যবহার করে ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যে পণ্য পরিবহণের দ্বিতীয় ‘ট্রায়াল রান’ (পরীক্ষামূলক চলাচল) শুরু হচ্ছে। এক সপ্তাহের মধ্যে ভারত থেকে এক কনটেইনার পণ্য আসছে চট্টগ্রাম বন্দরে।

আগামী ১ সেপ্টেম্বর কলকাতা থেকে কনটেইনারটি জাহাজে তোলা হবে। এরপর জাহাজটি রওয়ানা দেবে চট্টগ্রাম বন্দরের উদ্দেশে। বন্দর ও সংশ্লিষ্ট শিপিং এজেন্ট সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ট্রানজিটের আওতায় ট্রায়াল রানের পণ্য এলে তা খালাস করতে সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে তাদের।

চট্টগ্রাম ও মোংলা বন্দর ব্যবহার করে ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোতে পণ্য সরবরাহ করতে দুই দেশের মধ্যে ২০১৮ সালের অক্টোবরে একটি চুক্তি হয়। এরপর প্রথমবারের মতো ট্রায়াল রান হয়েছিল ২০২০ সালের জুলাইয়ে। তখন কলকাতা বন্দর থেকে পণ্যবাহী জাহাজ ‘এমভি সেঁজুতি’ চারটি কনটেইনার নিয়ে চট্টগ্রাম বন্দরে পৌঁছায়।

এর মধ্যে দুটি কনটেইনারে ছিল টিএমটি স্টিল বার, যা পরে স্থলপথে ভারতের ত্রিপুরায় যায়। বাকি দুই কনটেইনারে ছিল ডাল, যা ভারতের আসামে নেওয়া হয়েছিল। এরপর গত দুই বছরে আর কোনো ট্রায়াল রান হয়নি। সম্প্রতি আরও ট্রায়াল রানে সন্মত হয় উভয় দেশ। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, এবার ম্যাঙ্গো শিপিং লাইনের এমভি ‘ট্রান্স সমুদ্রা’ নামের জাহাজে করে কনটেইনারটি চট্টগ্রাম বন্দরে আসবে কলকাতার শ্যামাপ্রসাদ বন্দর থেকে।

একইভাবে চট্টগ্রাম বন্দর থেকেও একটি চালান কলকাতায় যাওয়ার কথা রয়েছে। তবে চট্টগ্রাম বন্দর থেকে কলকাতায় ট্রায়াল রানের দিনক্ষণ এখনো চ‚ড়ান্ত হয়নি।

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সচিব মো. ওমর ফারুক যুগান্তরকে বলেন, ট্রানজিটের আওতায় দ্বিতীয় ট্রায়াল রান মঙ্গলবার হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তা কয়েক দিন পিছিয়েছে। জাহাজে পণ্যবোঝাই একটি কনটেইনার আসবে কলকাতা থেকে। এটি আগামী ১ সেপ্টেম্বর কলকাতা থেকে শিপমেন্ট হবে। এক সপ্তাহের মধ্যে এটি চট্টগ্রাম বন্দরে এসে পৌঁছবে।

তিনি বলেন, ‘ভারতীয় পণ্য এলে তা খালাসের প্রস্তুতি আমাদের বরাবরই থাকে। আমাদের বার্থ রেডি। ইকুইপমেন্টসহ সবকিছুই ঠিক আছে। কোস্টাল শিপিং হলে তার জন্য বিশেষায়িত বার্থ আছে। অন্য বড় জাহাজ হলে তার জন্য নিয়ম অনুযায়ী বার্থিংয়ের ব্যবস্থা করা হবে।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ম্যাঙ্গো শিপিং লাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এয়াকুব ভুঁইয়া সুজন যুগান্তরকে বলেন, এমভি ট্রান্স সমুদ্রা নামের জাহাজ ট্রায়াল রানের কনটেইনার কলকাতা থেকে চট্টগ্রাম বন্দরে নিয়ে আসবে। আমাদের জাহাজটি এখনো চট্টগ্রাম বন্দরে রয়েছে। সেখান থেকে পণ্য নিয়ে এটি কলকাতা যাওয়ার পর ট্রায়াল রানের কনটেইনারটি নিয়ে চট্টগ্রামের উদ্দেশে রওনা দেবে।

রোববার চট্টগ্রাম বন্দরে নিউমুরিং কনটেইনার টার্মিনাল পরিদর্শনকালে নৌপ্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, ভারতের সঙ্গে চুক্তি অনুসারে তাদের দেশের জাহাজ চট্টগ্রাম বন্দর ব?্যবহার করতে পারবে এবং সেখান থেকে সড়কপথে ভারতের রাজ্যে মালামাল যেতে পারবে। এজন?্য চট্টগ্রাম বন্দরে ভারতের জাহাজের ট্রায়াল রান হয়েছে। আরও ট্রায়াল হবে।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ মানবিক রাষ্ট্র। ৩০ লাখ শহিদের রক্তের বিনিময়ে এ দেশ পেয়েছি। আমরা সবসময় মানবিক পদক্ষেপ নিয়েছি। বঙ্গবন্ধুর বিদেশনীতি হলো ‘সবার সঙ্গে বন্ধুত্ব।’ সে অনুযায়ী আমরা মানবিকতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছি।

সম্পর্কিত খবর

সর্বশেষ খবর

spot_img