27 C
Dhaka

নোয়াখালীতে মুক্তিযোদ্ধা লাঞ্ছিত, প্রাণনাশের হুমকি

প্রকাশিত:

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে মুক্তিযোদ্ধার বসতবাড়ি, দোকানঘর ও জমিজমা অবৈধ দখল করে ভোগদখল করছে তারই ভাতিজা ইকবাল হোসেন ও তার ভাইয়েরা।

মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ মোশারফ হোসেন ও তার ভাই মোতাহার হোসেন এর মধ্যে সম্পত্তি নিয়ে শালিশ ও আপোষ বন্টননামা (যাহার নং- ১১৬ তারিখ: ২৭.৩.২০১২) সম্পাদিত হয়।

মোতাহার হোসেন মারা যাওয়ার পর তার ছেলে ইকবাল হোসেন ও অপর দুই পুত্র সেই বন্টননামা ও শালিশের সিদ্ধান্ত অমান্য করে চাচা মোশারেফ হোসেনের বিষয়-সম্পত্তি জোরপূর্বক ভোগদখল করে আসছে।

ঢাকায় স্ত্রী সন্তান নিয়ে বসবাসকারী মোশারেফ হোসেন তার জমি-জমা সম্পত্তি বুঝে নিতে সোনাইমুড়ী গেলে ভাতিজাত্রয় তাকে বাধা প্রদান, অকথ্য গালিগালাজ ও শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে। এতে মোশারেফ হোসেন মারাত্মক আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নেন।

পরে উপজেলার মানিক্যনগর গ্রামের ইকবাল হোসেন গং এর বিরুদ্ধে সম্পত্তি বেআইনী ভোগদখলের বিরুদ্ধে মোশারেফ হোসেনের পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সাফায়েত হোসেন সজিব ২২/১২/২০২১ ইং তারিখে এক আইনি নোটিশ পাঠান। প্রেরিত নোটিশে রেজেস্ট্রি বন্টননামা অনুযায়ী বসতভিটা, দোকান ও অন্যান্য সম্পত্তি অংশ অনুযায়ী ভোগদখলের কথা বলা হয়। নোটিশে মানিক্য নগর মৌজার ২৮৯১ দাগের ৩০০ অজুতাংশ বসতভিটা ও একই মৌজার ২৩২০,২৩২১ ও ৩৭৩১ দাগের ৩৫০ অযুতাংশ জমি অবৈধ দখল ছেড়ে দেয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়।

ইকবাল হোসেনের বক্তব্য নিতে তার মুঠোফোনে কল দিলে তিনি জানান, মুক্তিযোদ্ধা তার পিতার বড় ভাই। তার পিতার সাথে কোন বন্টক নামার দলিল হয়নি। এলাকায় বসে বিষয়টি সমোঝোতা করার প্রস্তাব দিলেও তিনি প্রতাখ্যান করে তাদেরকে হয়রনি করছে বলে তিনি অভিযোগ করেন।

সম্পর্কিত খবর

সর্বশেষ খবর

spot_img