30 C
Dhaka

প্রতিবন্ধী যুবতীকে ধ-র্ষ-ণে-র পর তার বিরুদ্ধেই চাঁদাবাজির অভিযোগ

প্রকাশিত:

গাংনী (মেহেরপুর) প্রতিনিধি : মেহেরপুরের গাংনীতে শারীরিক প্রতিবন্ধী এক যুবতীকে জোরপূর্বক ধ-র্ষ-ণ করেছে তারই চাচাতো ভাই। ঘটনার পর থেকে আত্মগোপন করলেও একটি প্রভাবশালী মহলের সহায়তায় প্রতিবন্ধী যুবতীকে মামলা করতে বাধা প্রধান করছে অভিযুক্ত ধ-র্ষ-ক মনিরুল ইসলাম।

ধ-র্ষ-ণে-র অভিযোগ থেকে রেহাই পেতে ভুক্তভোগীর পরিবারের নামে গাংনী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন লম্পট মনিরুল। বিষয়টি নিয়ে এলাকার মানুষের মাঝে তীব্র সমালোচনা চলছে।

তবে গাংনী পুলিশ বলছে, বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। ধ-র্ষ-ণে-র শিকার ওই প্রতিবন্ধী নারী সাংবাদিকদের জানান, গত ৩০ আগস্ট শারীরিক প্রতিবন্ধীর মা চিকিৎসা নিতে রাজশাহীতে ছিলেন। কাজের উদ্দেশ্যে বাবা ছিলেন বাড়ির বাইরে। আর এই সুযোগে প্রতিবেশী চাচাতো ভাই মনিরুল ইসলাম তার বাড়িতে যায়। যুবতীকে একলা পেয়ে কোলে তুলে নিয়ে বাড়ির একটি রুমে যায়। সেখানে জোরপূর্বক ধ-র্ষ-ণ করে মনিরুল।

প্রতিবন্ধীর চিৎকারে ছোট ভাই এগিয়ে গিয়ে বিষয়টি লক্ষ্য করেন। তখন সে মনিরুলের দিকে তেড়ে যায়। অবস্থা বেগতিক দেখে দৌড়ে পালিয়ে যায় অভিযুক্ত ধ-র্ষ-ক মনিরুল ইসলাম। এদিকে ধ-র্ষ-ণে-র বিচার চাইতে ওই দিন মনিরুলের বাড়িতে যায় প্রতিবন্ধী ও তার পরিবারের সদস্যরা। এতে মনিরুলের স্ত্রী রোজিফা খাতুন, তার মেয়ে আয়েশা খাতুন ওরফে মুন্নী এবং জামাতা শান্ত মারপিট করে তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়।

এ ব্যাপারে স্থানীয় ভবানিপুর পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ জহির রায়হান বলেন, ঘটনাটি ভবানীপুর ক্যাম্পের অদূরের ঘটনা। ৯৯৯ ফোন পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে মেয়েটির স্বাক্ষ্য গ্রহণ করার পর মেয়ে‌টিকে মামলা করার পরামর্শ দেয়া হয়।

প্রতিবন্ধীর পরিবারিক সূত্রে জানা গেছে, জন্মগতভাবেই সে প্রতিবন্ধী। নিজে হাঁটতে পারে না। কেউ যদি তাকে তুলে দাঁড় করিয়ে দেয় তাহলে কিছুক্ষণ হাঁটতে পারে। বসার পরে নিজে আর উঠে দাঁড়াতে পারে না। ফলে সারাক্ষণ তাকে বাড়িতেই থাকতে হয়। পরিবার তাকে নিয়ে বিপাকে থাকলেও মধ্য বয়সী মনিরুলের লোলুপ দৃষ্টি পড়ে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন গ্রামেবাসি জানান, মনিরুল সুচতুর ও প্রভাবশালী। সে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে প্রভাবশালী মহলের সহায়তায় নানাভাবে পাঁয়তারা চালাচ্ছে। তাছাড়া ধ-র্ষি-তা-র পরিবারকে মামলা না করতে হুমকি ধামকি দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সেই সাথে ধ-র্ষি-তা-র বিরুদ্ধে থানায় একটি চাঁদাবাজির অভিযোগও করা হয়েছে।

এদিকে ঘটনার পর থেকে গ্রামের একটি পক্ষ বিষয়টি সালিশে মীমাংসার জন্য উঠেপড়ে লাগে। অভিযুক্ত ধ-র্ষ-ক মনিরুল ইসলামকে রক্ষা করতেই নানাভাবে প্রতিবন্ধী পরিবারকে টাকার প্রলোভন ও হুমকি দিচ্ছে তারা। ফলে ওই প্রতিবন্ধী ও তার পরিবারের লোকজন মামলা করতে থানা পর্যন্ত আসতে পারছে না। তাই পুলিশের পক্ষ থেকে অসহায় এই পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর অনুরোধ করেছেন গ্রামের অনেকে।

এ‌দিকে অভিযোগ অস্বীকার করে মনিরুল ইসলাম জানান, পারিবারিক কলহের জের ধরে ওই প্রতিবন্ধী পরিবারটি মিথ্যা অভিযোগ করছে। মামলা করার হুমকী দিচ্ছে। তাই বাধ্য হয়ে থানায় অভিযোগ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে গাংনী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক জানান, ধ-র্ষ-ণে-র বিষয়টি খোঁজ নেয়া হচ্ছে। এ পর্যন্ত কারো কোন প্রকার লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি। বিষয়টি খতিয়ে দেখে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সম্পর্কিত খবর

সর্বশেষ খবর

spot_img