33 C
Dhaka

বন্ধুকে উদ্ধার করতে গিয়ে প্রাণ গেল শিক্ষার্থীর

প্রকাশিত:

কুড়িগ্রামে ধরলা নদীর টি-বাঁধে বেড়াতে গিয়ে নদীর তীব্র স্রোতে তলিয়ে গিয়ে আসাদুজ্জামান শুভ (১৭) নামে ১০ম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। সে তার বন্ধু জয়কে উদ্ধার করতে গিয়ে পানিতে তলিয়ে গিয়েছিল।

বুধবার (১৭আগস্ট) দুপুর ১টার দিকে ধরলা নদীতে নিখোঁজ হয় আসাদুজ্জামান শুভ। সন্ধ্যা ৬টার সময় রংপুর ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল নদীর তলদেশ থেকে তার লাশ উদ্ধার করে।

আসাদুজ্জামান শুভ কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার ভোগডাঙ্গা ইউনিয়নের পাটেশ্বরী এলাকার তাজুল ইসলামের ছেলে। সে কুড়িগ্রাম সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

তাজুল ইসলাম লালমনিরহাট পুলিশ সুপার অফিসে সিআইডি (এসআই) অফিসার হিসেবে কর্মরত আছেন বলে জানা গেছে। তার এক ছেলে ও এক মেয়ের মধ্যে আসাদুজ্জামান শুভ বড় ছিল। ঘটনার পর পরই ধরলা নদীর তীরে স্ত্রী ও কন্যা সন্তানকে নিয়ে সেখানে অপেক্ষা করেন তিনি। কিন্তু রংপুর ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরির দল দিনাজপুরে অবস্থান করায় সেখান থেকে আসতে তাদের বিলম্ব হয়।

স্থানীয়রা জানান, আসাদুজ্জামান শুভসহ তার দুই বন্ধু জয় ও তরঙ্গ ধরলা ব্রিজের পাশে টি-বাঁধে বেড়াতে যায়। এ সময় খেলতে গিয়ে জয় পানিতে পরে গেলে আসাদুজ্জামান শুভ ও তরঙ্গ পানিতে নেমে জয়কে উদ্ধার করে। এ সময় তীব্র পানির স্রোতে আসাদুজ্জামান শুভ পানিতে তলিয়ে যায়। পরে জয় ও তরঙ্গের চিৎকার শুনে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলেও তাকে খুঁজে না পেয়ে কুড়িগ্রাম ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়।

কুড়িগ্রাম ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন ইনচার্জ মোহাম্মদ আলী সাজ্জাদ জানান, খবর পেয়ে দুপুরেই কুড়িগ্রাম ফায়ার সার্ভিসের একটি দল নিয়ে ঘটনাস্থলে যাই। কুড়িগ্রামে অভিজ্ঞ ডুবুরি না থাকায় রংপুর ফায়ার সার্ভিসকে ডুবুরি দল পাঠানোর জন্য অনুরোধ করা হয়। তারা বিকেল সাড়ে ৫টায় ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে প্রায় ২০ মিনিটের মধ্যে স্কুল শিক্ষার্থীর লাশ ঘটনাস্থলের কাছে নদীর তলদেশ থেকে উদ্ধার করা হয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কুড়িগ্রাম সদর থানার ওসি খান মো. শাহরিয়ার জানান, কুড়িগ্রাম ফায়ার সার্ভিস ও রংপুর ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরির দল যৌথভাবে অনুসন্ধান চালিয়ে স্কুল শিক্ষার্থীর লাশ ধরলা নদীর নিচে থেকে উদ্ধার করে।

সম্পর্কিত খবর

সর্বশেষ খবর

spot_img