21 C
Dhaka

বন্যার পানিতে তলিয়ে গেল এটিএম বুথ

প্রকাশিত:

বন্যার পানিতে ঘর-বাড়ি, দোকান, শপিংমল, স্কুল-কলেজ তলিয়ে গেছে। এছাড়া নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হওয়ায় এ জেলার এটিএম বুথগুলোও একের পর এক অচল হয়ে পড়ছে। অনেক ব্যাংকের শাখা-উপশাখা সংলগ্ন এলাকায় পানি উঠেছে। এ অবস্থায় সিলেটের কয়েকটি এলাকায় ব্যাংকিং সেবা সাময়িক বন্ধের ঘোষণা দিতে শুরু করেছে ব্যাংকগুলো। সড়ক ও আকাশ যোগাযোগের সঙ্গে মোবাইল নেটওয়ার্কও বিচ্ছিন্ন। ফলে এই দুই জেলায় নেমে এসেছে মানবিক বিপর্যয়।

বন্যা পরিস্থিতির অবনতির কারণে সিলেট বিভাগের চারটি শাখার কার্যক্রম সাময়িকভাবে বন্ধ ঘোষণা করেছে বেসরকারিখাতের ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড। বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হলে সিলেট উপশহর, বিশ্বনাথ, দক্ষিণ সুরমা ও সুনামগঞ্জ শাখা চালু করা হবে। ডাচ-বাংলা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী আবুল কাশেম মো. শিরিন ফেসবুকে ২টি ছবি শেয়ার করে লিখেছেন, প্রায় ৫০টি এটিএম বুথ বন্যার পানিতে ডুবে গেছে, যার বেশির ভাগই সুনামগঞ্জ, কিছু রয়েছে সিলেটে।

ব্যাংক নির্বাহীদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশের (এবিবি) সাবেক চেয়ারম্যান ও ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেডের (ইবিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) আলী রেজা ইফতেখার গণমাধ্যমকে বলেন, আমাদের বিভিন্ন ব্যাংকের সামনে প্রচুর পানি। বিশেষ করে বিশ্বনাথ উপজেলায় আমাদের একটি শাখায় কোমর পরিমাণ পানি ঢুকে গেছে। গ্রাহকরা ব্যাংকে আসতে পারেননি। আগামীকাল রবিবার বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে কথা বলে ফেঞ্চুগঞ্জ ও বিশ্বনাথ শাখা বন্ধ রাখতে পারি। আর আমরা এটিএমগুলো সরিয়ে রেখেছি। ফলে বন্যাকবলিত কোনো কোনো স্থানে এটিএম সেবা বন্ধ রাখা হয়েছে।

সম্পর্কিত সংবাদ

spot_img

সর্বশেষ সংবাদ

spot_img