30 C
Dhaka

ব্রাসেলসে বঙ্গবন্ধুর ৪৭তম মৃত্যুবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন

প্রকাশিত:

ব্রাসেলসে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস জাতীয় শোক দিবস ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদাৎ বার্ষিকী যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করেছে।

অনুষ্ঠানে আলোচনাকালে বেলজিয়াম ও লুক্সেমবার্গে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এবং ইউরোপিয়ান ইউনিয়নে বাংলাদেশের মিশন প্রধান মাহবুব হাসান সালেহ্ বলেন, স্বাধীন বাংলাদেশের ৫০ বছর ৭ মাসের মধ্যে মাত্র ২২ বছর ২ মাস স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি ক্ষমতায় আছে। বাকি ২৮ বছর ৫ মাস স্বাধীনতা বিরোধী, সামরিক ও অনির্বাচিত স্বৈরাচার দ্বারা বাংলাদেশ পরিচালিত হয়েছে। সেই সময়কালে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় বিকৃত ইতিহাস জেনে বেড়ে উঠেছে বাংলাদেশের একটি প্রজন্ম। তিনি আরো বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর যোগ্য উত্তরসূরি বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২২ বছর ২ মাসের শাসনামলে জাতিকে অনেক কিছু দিয়েছেন এবং দিয়ে যাচ্ছেন। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের ‘সোনার বাংলা’ বিনির্মাণে নতুন প্রজন্মকে তাঁর আদর্শ ধারণ করে নিজি নিজ ক্ষেত্রে অবদান রাখারও আহবান জানান রাষ্ট্রদূত সালেহ্। বক্তব্যের শেষে তিনি বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে স্বরচিত কবিতা ‘তুমি আমার’ আবৃত্তি করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও বর্তমানে বেলজিয়ামের ঘেন্ট বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডিরত শেখ শামস মোরসালিন পরিবারের নিকট থেকে শোনা ১৫ আগস্টের হৃদয়বিদারক ঘটনার আবেগময় বর্ণনা দিয়ে বলেন, বাংলাদেশে এখনও সঠিক ইতিহাস পূর্ণ মাত্রায় চর্চা হচ্ছে না। তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও দেশপ্রেম নিজেদের মধ্যে চর্চা করলে এবং নিজের দায়িত্ব সকলে নিষ্ঠার সাথে পালন করলে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তব রূপ লাভ করবে।

জাতীয় শোক দিবস এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন ও কর্মের ওপর আলোচনা অনুষ্ঠানে বেলজিয়ামে বসবাসরত বাংলাদেশ কম্যুনিটির সদস্যবৃন্দ একটি পূর্ণ তদন্ত কমিশন গঠন করে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের কলঙ্কজনক হত্যাকাণ্ডের ঘটনাপ্রবাহ এবং এর সঙ্গে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িতদের নাম প্রকাশের দাবি জানান। তাঁরা আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু হলেন বাঙালি জাতির সেই সূর্য সন্তান, যার জন্ম না হলে বাংলাদেশের জন্ম হতো না।

অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, তাঁর পরিবার ও ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টে শহিদ সকলের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। দিবসটি উপলক্ষ্যে মহামান্য রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, মাননীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রী ও মাননীয় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী কর্তৃক প্রদত্ত বাণীসমূহ দূতাবাসের কর্মকর্তাবৃন্দ পাঠ করেন। এরপর চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের সৌজন্যে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন ও কর্মের ওপর নির্মিত তথ্যচিত্র ‘‘চিরঞ্জীব বঙ্গবন্ধু’’ প্রদর্শন করা হয়।

দিনের শুরুতে রাষ্ট্রদূত মাহবুব হাসান সালেহ্ দূতাবাস প্রাঙ্গণে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করেন এবং দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীর পক্ষ থেকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। বেলজিয়ামে বসবাসরত বাংলাদেশ কম্যুনিটির সদস্যবৃন্দও দূতাবাসে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

সম্পর্কিত খবর

সর্বশেষ খবর

spot_img