20 C
Dhaka

ভয়াবহ বন্যার মুখে মৌলভীবাজার

প্রকাশিত:

মৌলভীবাজারে মনু নদীর পানি বিপৎসীমার চার সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ঝুঁকিতে রয়েছেন নদী তীরের কয়েক লাখ বাসিন্দা।

জানা গেছে, জেলার কুশিয়ারা ও ধলাই নদীতে পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। এতে হাকালুকি, কাউয়াদিঘী, হাইল হাওরসহ বিভিন্ন হাওরের পানি বৃদ্ধি পেয়ে নতুন এলাকায় বন্যা দেখা দিয়েছে। জেলার সাত উপজেলার প্রায় আড়াই লাখ মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। মৌলভীবাজার শহরের মাইজপাড়া এলাকায় প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের ৪৩টি ঘর তলিয়ে গেছে। চরম বিপাকে পড়েছেন আশ্রয়ণ প্রকল্পে বসবাসকারীরা।

আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দারা নাম প্রকাশ না করে বলছেন, অপরিকল্পিতভাবে নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধের বাইরে এই ঘরগুলো নির্মাণ করায় বড় ধরনের ক্ষতি হয়েছে। ঘরে পানি ওঠার পরেও আশ্রয়ের জন্য আমাদের কোনো জায়গা দেওয়া হয়নি।

মাইজপাড়া এলাকার বদরুল ইসলাম বলেন, নদীর তীরে এভাবে আশ্রয়ণের ঘর তৈরি ঠিক হয়নি। যে কারণে আজ অসহায় মানুষগুলো সমস্যায় পড়েছে।

জেলার কমলগঞ্জ উপজেলার লাঘাটা নদীর বাঁধ ভেঙে কয়েকটি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। এতে ২০০ পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। স্থানীয় চেয়ারম্যান অলি আহমদ খান জাগো নিউজকে এ নিশ্চিত করেছেন।

মৌলভীবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আখতারুজ্জামান খান জাগো নিউজকে বলেন, মনু নদীর পানি বিকেল থেকে বিপৎসীমার চার সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান জানিয়েছেন, পুরো জেলায় ৪২টি ইউনিয়ন প্লাবিত হয়েছে। এতে পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন ৪০ হাজার পরিবার। জেলাজুড়ে ১০১টি আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, সোমবার সন্ধ্যা ৬টায় চাঁদনীঘাট পয়েন্টে সরেজমিনে বিপৎসীমার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হতে দেখা গেছে।

সম্পর্কিত সংবাদ

spot_img

সর্বশেষ সংবাদ

spot_img