22 C
Dhaka

যমজের বদলে প্রসূতি ৩ ছেলে-মেয়ের জন্ম দেয়ায় ডাক্তারও বিস্মিত

প্রকাশিত:

পরিবারের লোকজন জানতেন যমজ সন্তান হবে। নির্দিষ্ট দিনে প্রসূতিকে নেওয়া হয় ক্লিনিকে। দিনভর নরমাল ডেলিভারি করানোর চেষ্টা করেন ডাক্তার। তবে শেষ পর্যন্ত অস্ত্রোপাচারের সিদ্ধান্ত নিতে হয় ডাক্তারকে। অস্ত্রোপচার করতে গিয়ে ডাক্তারের চোখ তো ছানাবড়া!

অস্ত্রপচারের সময় একটার পর একটা নবজাতক সন্তান বের হয়ে আসতে থাকে প্রসূতির পেট থেকে। একের পর এক নবজাতক সন্তান দেখে শুধু ডাক্তারই নন, বিস্ময়ে হতবাক হয়ে যান অপারেশন থিয়েটারের ভেতরে থাকা নার্সরাও। সফল অস্ত্রোপাচারের মাধ্যমে জন্ম নেয় সুস্থ ও সবল তিন-তিনটি নবজাতক। সদ্যভূমিষ্ঠ তিন শিশুর মধ্যে দুটি মেয়ে ও একটি ছেলে।

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে ভোলা জেলার চরফ্যাশন উপজেলায়। একসঙ্গে তিন সন্তানের জননী হয়েছেন যে নারী তার নাম রেশমা বেগম। তিনি চরফ্যাশন উপজেলার শশীভূষণ থানার এওয়াজপুর ইউনিয়নের অন্তর্গত এওয়াজপুর গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল মান্নান মেস্তরীর স্ত্রী।

অস্ত্রপচারের মাধ্যমে একসঙ্গে তিনটি সন্তানকে পৃথিবীর আলো দেখানোর পর ৩ নবজাতক সন্তানসহ সুস্থ আছেন তাদের মা রেশমা বেগম।

এদিকে জানা গেছে, রেশমা ও তার স্বামীর পরিবারের লোকজন আগে থেকেই জানতেন যে, রেশমার পেটে যমজ শিশু আছে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত দুটি না, একসঙ্গে তিনটি সন্তানের জন্ম দেন রেশমা বেগম। দুই সন্তানের জায়গায় একসঙ্গে তিন সন্তান পেয়ে পরিবারের লোকজন দারুন খুশি।

সম্প্রতি চরফ্যাশন হাসপাতাল রোডে অবস্থিত একটি বেসরকারি ক্লিনিকে অস্ত্রোপ্রচারের মাধ্যমে তিনটি সুস্থ সবল নবজাতককে ভূমিষ্ঠ করানো হয়। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ক্লিনিকটির পরিচালক মোঃ মিল্লাত
বলেন, চিকিৎসক দেবশ্রী পালের তত্ত্বাবধানে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে দুই মেয়ে ও এক ছেলে সন্তান ভূমিষ্ঠ হয়।

সম্পর্কিত সংবাদ

spot_img

সর্বশেষ সংবাদ

spot_img