31 C
Dhaka

রংপুর সিটি নির্বাচন সরকার ও কমিশনের জন্য পরীক্ষা : জিএম কাদের

প্রকাশিত:

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সংসদের বিরোধীদলীয় উপনেতা জি এম কাদের বলেছেন, বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন, উপজেলা নির্বাচন, সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে টাকা, পেশী শক্তি, প্রশাসন ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে ব্যবহার করে সরকারী দল তাদের প্রার্থীদের জিতিয়েছে। এজন্য আমরা অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন দাবী করছি। রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন সরকার ও কমিশনের জন্য পরীক্ষা। এটিতে অংশগ্রহণের মাধ্যমে আমরা দেখতে চাই সরকার ও নির্বাচন কমিশন কি করছে। এ নির্বাচনের মাধ্যমে আমরা ভবিষ্যতের কর্মপন্থা নির্ধারণ করবো।

গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে রংপুর পাবলিক লাইব্রেরী মাঠে মহানগর জাতীয় পার্টির ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

জাপা চেয়ারম্যান আরও বলেন, আমাদের দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা খারাপের দিকে যাচ্ছে। দেশে ডলারের তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। সরকার বিদ্যুৎ দিতে পারছে না। বিদ্যুতের অভাবে রপ্তানীমূখী কারখানার উৎপাদন কমে যাচ্ছে। অথচ এই সরকার বিদ্যুতে সয়ংসম্পূর্ণ দেশ হিসেবে ঘোষণা দিয়ে উৎসব পালন করেছে। দেশে ২৪ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুতের উৎপাদন ক্ষমতা থাকলেও আমাদের চাহিদা মাত্র ১৪ হাজার মেগাওয়াট। এখন ৯ হাজার মেগাওয়াটের বেশি সরবরাহ করতে পারছে না সরকার। তাই দিনে-রাতে ঘন্টার পর ঘন্টা লোডশেডিং চলছে।

জাতিসংঘের ফুড এন্ড এগ্রিকালচার বিভাগের তথ্য অনুযায়ী পৃথিবীর ৪৫টি দেশে খাদ্য সংকট দেখা দেবে। তার মধ্যে এশিয়ার ৯টি দেশে ও দক্ষিণ এশিয়ার ৩টি দেশে। এর মধ্যে অন্যতম বাংলাদেশ। কারণ আমাদের জ্বালানী তেলের সংকট রয়েছে, চাষীরা সেচ দিতে পারছে না, সারের অভাবে ফসল উৎপাদন হচ্ছে না আর আমদানী করতে হলে ডলার নেই। তাই দেশের মানুষের দূর্ভোগ কমাতে সরকার দ্রুত উদ্যোগ নিতে হবে। সম্মেলনের প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন, জাতীয় পার্টির মহাসচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাড. মুজিবুল হক চুন্নু এমপি।

তিনি বলেন, দেশে বিচার ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে। বর্তমান কমিশন কোন নির্বাচনই সুষ্ঠুভাবে করতে পারছে না। দেশের দুই রাজনৈতিক দলের মধ্যে আওয়ামী লীগ চোর হলে বিএনপি ডাকাত। দেশের দুঃশাসন থেকে একমাত্র জাতীয়পার্টিই জনগণকে মুক্তি দিতে পারে। দেশের ৫ কোটি বেকারের কথা আওয়ামী লীগ-বিএনপি বলে না। ক্ষমতায় গেলে বেকারদের কর্মসংস্থান করবে। কর্মমূখী শিক্ষায় শিক্ষিত করা, হাসপাতালে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করা, প্রত্যেক বিভাগে প্রাদেশিক সরকার ব্যবস্থা কায়েম করা, উপজেলায় আদালতের ব্যবস্থা করা হবে। আমরা জিএম কাদেরের নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে যাব।

সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এমপি বলেন, আমরা জাতীয় পার্টিকে কালো মেঘের আধাঁর থেকে রৌদ্র উজ্জ্বল দিনে নিয়ে আসছি। কোন দূর্যোগ আমাদের পেছাতে পারবে না। সম্মেলনের বিশেষ বক্তা অতিরিক্ত মহাসচিব ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী এমপি বলেন, দেশের বাজেট ব্যয় যেমন বেড়েছে, তেমনি হারে দূর্নীতি বেড়েছে। বিএনপি সরকার দেশে বিদ্যুতের খুঁটি লাগিয়েছিল, কিন্তু সরবরাহ লাইন স্থাপন করেনি। আওয়ামী লীগ সরকার বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন করেছে কিন্তু বিদ্যুৎ উৎপাদন করছে না। সরকার দেশের ব্যাংক লুট করেছে, বিদেশে টাকা পাচার করেছে। এখন গ্যাস, তেল আনতে পারছে না। মেগা প্রজেক্টের নামে দেশকে দেউলিয়া করে দূর্ভিক্ষের দিকে ঠেলে দিয়েছে সরকার। মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এসএম ইয়াসিরের সঞ্চালনায় ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, জাপার ভাইস চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল মাসুদ নান্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, সংসদ সদস্য আহসান আদেলুর রহমানসহ জাতীয় পার্টি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা। সম্মেলনে মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি হিসেবে মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে এসএম ইয়াসিরকে নির্বাচিত করা হয়।


সম্পর্কিত খবর

সর্বশেষ খবর

spot_img