20 C
Dhaka

র‍্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতে ২৯ লক্ষাধিক টাকা জরিমানা

প্রকাশিত:

রাজধানীর কদমতলী, সূত্রাপুর, দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ ও নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা এলাকায় নকল বৈদ্যুতিক তার ও অনুমোদনহীন খাদ্যদ্রব্য উৎপাদন, মজুদ ও বিক্রি করায় র‍্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতে ২৯ লক্ষ ১০ হাজার টাকা জরিমানা।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে র‍্যাব-১০ জানায়, র‍্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব) প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকেই দেশের সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সমুন্নত রাখার লক্ষ্যে সব ধরনের অপরাধীকে আইনের আওতায় নিয়ে আসার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। র‍্যাব নিয়মিত জঙ্গী, সন্ত্রাসী, সংঘবদ্ধ অপরাধী, অস্ত্রধারী অপরাধী, ছিনতাইকারী ও মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে আসছে। এছাড়া প্রতারণা ও জালিয়াতি দমন র‍্যাবের একটি গুরুত্বপূর্ণ ও চলমান অভিযান। র‍্যাবের এই অভিযান দেশের সব মহলে প্রশংসিত হয়েছে।

এরই ধারাবাহিকতায় ১৪ জুন সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দিবাগত রাত ১টা পর্যন্ত র‍্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জনাব মোঃ মাজহারুল ইসলাম ও র‍্যাব-১০ এর সমন্বয়ে একটি আভিযানিক দল রাজধানীর কদমতলী, সূত্রাপুর, দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ ও নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত কার্যক্রম সম্পন্ন করে। এসময় বিএসটিআইয়ের প্রতিনিধিরাও উপস্থিত ছিলেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত রাজধানীর কদমতলী, সূত্রাপুর, দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ ও নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা এলাকায় নকল বৈদ্যুতিক তার, ভেজাল অনুমোদনহীন খাদ্যদ্রব্য ও প্রসাধনী সামগ্রী উৎপাদন, মজুদ ও বিক্রি করার অপরাধে সুপার সাইন ক্যাবলসকে ২০,০০,০০০ (বিশ লক্ষ) টাকা, লুকাস ইলেকট্রনিক্সকে ৩,০০,০০০ (তিন লক্ষ) টাকা, বিএসএন ক্যাবলসকে ২,০০,০০০ (দুই লক্ষ) টাকা, জিনার অ্যাগ্রো ফুডকে ২,৫০,০০০ (দুই লক্ষ পঞ্চাশ হাজার) টাকা, এবিসি কেমিকেলকে ১,৫০,০০০ (এক লক্ষ পঞ্চাশ হাজার) টাকা জরিমানা প্রদান করেন। এছাড়া
নকল বৈদ্যুতিক তার ও কালো নিমের মাজন উৎপাদনের দায়ে আরেকটি প্রতিষ্ঠানকে ১০,০০০/- (দশ হাজার) টাকা জরিমানা করা হয়।

মোট ছয়টি প্রতিষ্ঠানকে সর্বমোট ২৯,১০,০০০ (ঊনত্রিশ লক্ষ দশ হাজার) টাকা জরিমানা প্রদান করা হয়। এছাড়া বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশে উক্ত ভ্রাম্যমাণ আদালত কর্তৃক আনুমানিক ৫০,০০০ (পঞ্চাশ হাজার) টাকার নকল বৈদ্যুতিক তার ও কালো নিমের মাজন জব্দ ও ধ্বংস করা হয়।

প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা যায় যে, বেশ কিছুদিন ধরে এই অসাধু ব্যবসায়ীরা নকল বৈদ্যুতিক তার, ভেজাল অনুমোদনহীন খাদ্যদ্রব্য ও প্রসাধনী সামগ্রী উৎপাদন, মজুদ ও বিক্রি করে আসছিল।

সম্পর্কিত সংবাদ

spot_img

সর্বশেষ সংবাদ

spot_img