18 C
Dhaka

সীতাকুন্ডে বিস্ফোরণে নিহত ৩৪, নিহত শ্রমিকের ফেসবুক লাইভে বিস্ফোরণের দৃশ্য (ভিডিও)

প্রকাশিত:

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে প্রায় ২৬ একর জায়গাজুড়ে কনটেইনার ডিপোতে ভয়াবহ বিস্ফোরণ ও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ভয়াবহ ওই বিস্ফোরণ ও অগ্নিকাণ্ডে অন্তত ৩৪ জন নিহত ও চারশতাধিক আহত হয়েছেন। হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

শনিবার, ৪ জুন রাতে বিএম কনটেইনার ডিপোতে আগুন লাগার পর সেখান থেকেই ফেসবুক লাইভ করছিলেন ডিপোর শ্রমিক অলিউর রহমান নয়ন (২৩)। এসময় লাইভের শিরোনামে অলিউর লেখেন, চট্টগ্রাম বিএম ডিপোতে আগুন লাগে।

অলিউরের লাইভ চলাকালীন হঠাৎ প্রচন্ড শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। প্রায় পৌনে এক ঘন্টার ফেসবুক লাইভের শেষদিকে ওই বিস্ফোরণের দৃশ্য ধরা পরে। এরপর চারপাশ অন্ধকার হয়ে যায়। প্রচন্ড শব্দে বিস্ফোরণের সময় অলিউরের হাতের মোবাইল ছিটকে পড়ে যায়। তারপর চিৎকার ও গোঙানির মতো শোনা গেলেও অলিউরের আর দেখা মেলেনি।

দীর্ঘ সময় নিখোঁজ ছিলেন অলিউর। বিভিন্ন গণমাধ্যমে তার নিখোঁজ হওয়ার খবরও প্রকাশিত হয়। অবশেষে ঘটনার পরদিন রোববার সকালে তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়া যায়।

জানা যায়, শনিবার দিবাগত রাত ২টার দিকে নিহত অলিউরের লাশ পৌঁছায় চট্টগ্রামের পার্কভিউ হাসপাতালে। রোববার সকালে অলিউরের পরিবারের সদস্যদের জানানো হয়, তিনি আর বেঁচে নেই। লাশ আনার জন্য তাদের গাড়ি নিয়ে হাসপাতালেও যেতে বলা হয়।

অলিউরের গ্রামের বাড়ি মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার কর্মধা ইউনিয়নের ফটিগুলীতে। তার বাবার নাম আশিক মিয়া। অলিউরের আকস্মিক মৃত্যুতে তার পরিবারের সদস্যরা মানসিকভাবে প্রচন্ড ভেঙে পড়েছেন। শোকের ছায়া নেমে এসেছে পুরো এলাকায়।

পরিবারের বড় ছেলে ছিলেন অলিউর। চার ভাই, দুই বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন সবার বড়। দরিদ্র পরিবারের সন্তান অলিউর জীবিকার তাগিদে মাস চারেক আগে বিএম কনটেইনার ডিপোতে শ্রমিক হিসেবে কাজ শুরু করেছিলেন।

সম্পর্কিত সংবাদ

spot_img

সর্বশেষ সংবাদ

spot_img