20 C
Dhaka

৫-৬শ’ মানুষ প্রতিদিন আমাকে দেখতে এসেছে : সানাই

প্রকাশিত:

এক সময় অশ্লীলতার অভিযোগে মিডিয়া পাড়ায় তুমুল বিতর্কের স্বীকার হয়েছিলেন সানাই মাহবুব। পেশাগত জীবনের চেয়ে ব্যক্তিগত বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের জন্য সোশ্যাল মিডিয়ার চর্চার কেন্দ্রে ছিলেন সানাই। তার স্বামী আবু সালেহ মুসা ঢাকায় একটি বেসরকারি ব্যাংকে কর্মরত। সানাইয়ের শ্বশুরবাড়ি নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার বাহাগিলি ইউনিয়ন দক্ষিণ দুরকুঠি এলাকায়।

ঈদ উপলক্ষে শ্বশুরবাড়িতে সবার সঙ্গে সুন্দর সময় কাটিয়েছেন তিনি। এমনকি তাকে দেখতে ঈদের ছয় দিন পর্যন্ত প্রতিদিন প্রায় ৫-৬শ’ মানুষ তার শ্বশুরবাড়িতে ভিড় করেছেন।

নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেইজে এই অভিনেত্রী লিখেন, ঈদে শ্বশুরবাড়িতে কাটানো কিছু মুহূর্ত। আশপাশের মানুষের ভালোবাসায় আমি সিক্ত। ঈদের দিন থেকে পরের ৫ দিন পর্যন্ত প্রায় ৫-৬শ’ মানুষ প্রতিদিন আমাকে এক ঝলক দেখতে এসেছে। এমনও হয়েছে ঘুমিয়েছিলাম ঘুম থেকে ডেকে তুলেছে কারণ মানুষ দেখতে এসেছে তাই! এটা কয়জনকে দেখতে আসে!

সানাইকে দেখতে শ্বশুরবাড়িতে প্রতিদিন ৫-৬শ’ মানুষের ভিড়!

কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে তিনি লেখেন, আলহামদুলিল্লাহ, সব কিছুর জন্য। আমি তাদের আপ্যায়নে মুগ্ধ। নেগেটিভ কিছু যে ছিল না তা নয়। কিন্তু পজিটিভের মাত্রা এতটাই বেশি ছিল যে, নেগেটিভের দিকে তাকানোর সুযোগ পাইনি। এটাও আল্লাহর রহমত, মাশাআল্লাহ।’

প্রসঙ্গত, সানাইয়ের অধিকাংশ কাজই সমালোচিত। একটা সময় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে খোলামেলা বিচরণ ছিলো তার। অশ্লীলতার অভিযোগে ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে ডিএমপির সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম ইউনিটের সাইবার নিরাপত্তা ও অপরাধ দমন বিভাগে হাজিরাও দিয়েছিলেন। সে সময় মুচলেকায় সই করে ছাড়া পান। এ ছাড়া আওয়ামী লীগের এক মন্ত্রীকে বিয়ে করছেন বলে আলোচনায় আসেন তিনি। যদিও পরে শোনা যায়, মন্ত্রী নয় এমপিকে বিয়ে করছেন। সে সময় তিনি এমপির পরিচয় গোপন রেখেছিলেন। গত বছর অভিনয় ছেড়ে দেওয়ার ঘোষণা দেন সানাই। তারপর থেকেই আর আলোচনায় নেই তিনি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সচল থাকলেও আগের মতো খোলামেলাভাবে আর দেখা যায় না তাকে।

সম্পর্কিত সংবাদ

spot_img

সর্বশেষ সংবাদ

spot_img